1. dainikajkermeghna@gmail.com : Saiful :
  2. alauddinislam015@gmail.com : মো: আলাউদ্দিন : মো: আলাউদ্দিন
  3. mahdihasan990@gmail.com : Mahdi Hasan : Mahdi Hasan
  4. najmulhossin2050@gmail.com : Najmul Hossain : Najmul Hossain
  5. sz.rony766@gmail.com : শহীদুজ্জামান রনী। : Sz rony
টেকসই বন্যা ব্যবস্থাপনা, প্রকৌশলী মোঃ আবদুস সবুর - দৈনিক আজকের মেঘনা
বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ০৫:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মেঘনায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ফাইনাল অনুষ্ঠিত। সংবাদিক ইমরুলের নামে পরিকল্পিত অপপ্রচার সংবাদিক মহলের নিন্দা। হারিয়ে যাওয়া ৯ ভরি ১৪ আনা স্বর্ণালংকার মেঘনা থানা পুলিশ কর্তৃক উদ্ধার। রাজাপুরে অসহায় সুবিধা বঞ্চিতদের মাঝে ঈদবস্ত্র বিতরন করেছেন ইঞ্জিনিয়ার আবুল কাসেম সীমান্ত মেঘনায় ঈদ উপহার বিতরণ করেন খন্দকার বাতেন। মেঘনায় ঈদ উপহার ঘর পেলেন ২২ গৃহহীন পরিবার। মেঘনায় তৌফিক ও সোলমান এর উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় মানববন্ধন করে এলাকাবাসী। মেঘনায় অভিবাসী কর্মী উন্নয়ন সংস্থার অভিযোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠন। মেঘনায় রোবটিক্স বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত নলছিটিতে ভিজিডি কার্যক্রমের অগ্রগতি পর্যালেচনা সভা অনুষ্ঠিত

টেকসই বন্যা ব্যবস্থাপনা, প্রকৌশলী মোঃ আবদুস সবুর

স্টাফ রিপোর্টার লিটন সরকার বাদল
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ৯৬ বার পঠিত

 

টেকসই বন্যা ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা বিষয়ে করণীয় বিস্তারিত জানাচ্ছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও আইবি’র প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মোঃ আবদুস সবুর।

বাংলাদেশ একটি নদীমাতৃক দেশ। ভৌগোলিক অবস্থান, দেশের ভূমিবৃত্তি ও আবহাওয়ার কারণে বাংলাদেশ প্রতিবছরই ছোট বড় বন্যায় আক্রান্ত হয়। দেশের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপট এবং সময় সময়ে বন্যার মাত্রা ও স্থায়িত্ব স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হওয়ায় দুর্যোগ ও বিপর্যয়ের সৃষ্টি হয়। তবে বন্যা বাংলাদেশের মানুষের জীবন-যাত্রা ও সংস্কৃতির সঙ্গে জড়িয়ে আছে। বন্যার সঙ্গে বসবাস করে এবং সাহসিকতার সঙ্গে বন্যা মোকাবেলা করার সংস্কৃতি আমাদের দীর্ঘদিনের। প্রতিবছর যে সাধারণ বন্য হয়, তা বাংলাদেশের প্লাবন ভূমির জন্য আশীর্বাদস্বরূপ। এই বন্যার পানি যে পলিমাটি বয়ে আনে, তা আমাদের কৃষিকাজের জন্য গুরুত্বপূর্ণ অনুঘটক হিসেবে কাজ করে।

স্বাধীনতার পূর্বে ১৯৫৪ ও ১৯৫৫ সালের ভয়াবহ বন্যার প্রেক্ষিতে জাতিসংঘের একটি প্রতিনিধিদলের পরিচালিত সমীক্ষার (ক্রুগ মিশন) সুপারিশ ক্রমে পানি সম্পদ, বিদ্যুতের উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে তৎকালীন ইপিওয়াপদা সৃষ্টি ছাড়া বন্যা ব্যবস্থাপনা নিয়ে তেমন কোন উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। স্বাধীনতার পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পানিসম্পদের সৃষ্ট ব্যবস্থাপনা ও টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে ১৯৭২ সালে প্রেসিডেন্ট অর্ডার নং-৫৯ এ তদানীন্তন ইপিওয়াপদা ‘পানি উইং’ নিয়ে একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে গঠন করেন বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (বাপাউবো)। ১৯৭২ সালে সংঘটিত বন্যার পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বন্যাদুর্গত এলাকা, কৃষি ও কৃষক শ্রেণীর ক্ষয়ক্ষতি নিজে পরিদর্শন করেন। তিনি তৎকালীন কৃষি ও সেচ মন্ত্রণালয় (বর্তমান পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়) এবং বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডকে বন্যা ব্যবস্থাপনার জন্য সুনির্দিষ্ট দিক নির্দেশনা প্রদান করেন। বন্যা ব্যবস্থাপনা এবং বন্যা নিয়ন্ত্রণের জন্য কাঠামোগত (বাঁধ নির্মাণ) ও অ-কাঠামোগত উভয় বিষয় যেমন আলোকপাত করেন, একইভাবে পাশর্বর্তী দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে অববাহিকা ভিত্তিক বন্যা ব্যবস্থাপনার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। এ সময় তিনি তৎকালীন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর সঙ্গে ২৫ বছর মেয়াদী একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেন। এই চুক্তির একটি ধারা ছিল উপমহাদেশের সহযোগিতায় অববাহিকা ভিত্তিক বন্যা ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে বাংলাদেশকে বন্যা দুর্যোগ মোকাবেলায় সক্ষম করে গড়ে তোলা।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইটঃ ২০১৯ দৈনিক আজকের মেঘনা এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Theme Customized BY LatestNews